আলহামদুলিল্লাহ- ১২ই রবিউল আউয়াল উপলক্ষে -ইসলামী সমাজের ওয়াজ ও দোয়ার মাহফিল সুসম্পন্ন।

দূর্নীতিসহ সকল মানবতা বিরোধী অপতৎপরতামুক্ত আদর্শ সমাজ গঠনের লক্ষ্যেই রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) এর জন্ম হয়েছিল। -আমীর ইসলামী সমাজ। ঐতিহাসিক ১২ই রবিউল আউয়াল উপলক্ষ্যে ইসলামী সমাজের উদ্যােগে  ১০ নভেম্বর ২০১৯ ইং রবিবার বিকাল ৩টা থেকে অনুষ্ঠিত ওয়াজ ও দােয়ার মাহফিলে ইসলামী সমাজের সম্মানিত আমীর হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর উপর পবিত্র আল কুরআন নাযিলের মাধ্যমেই সার্বভৌম ক্ষমতার একমাত্র মালিক সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ তাঁর প্রদত্ত ব্যবস্থা ‘ইসলাম’কে পরিপূর্ণ করে দিয়েছেন। ইসলামের মূল আকীদাহ হচ্ছে সার্বভৌমত্ব একমাত্র আল্লাহর, মানুষের নয়। মানুষ সার্বভৌম ক্ষমতার একমাত্র মালিক সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর দাস ও দুনিয়াতে তাঁরই প্রতিনিধি আর এটাই মানুষের সঠিক অবস্থান। কিন্তু বর্তমান বিশ্বের মানুষ তাদের সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন ও পরিচালনায় মানুষকে সার্বভৌমত্বের মালিক মেনে তাদের সঠিক অবস্থান থেকে বিচ্যুত হয়ে মানুষেরই দাসত্ব করছে, যার কারণে তারা আল্লাহ রাবুল আলামীনের বিভিন্ন রকম আযাব-গজবের শিকার হয়ে বহুবিধ সমস্যায় জড়িয়ে দূর্ভোগ ও অশান্তিতে জীবন কাটাচ্ছে। এ অবস্থায় মৃত্যু বরণ করলে আখিরাতে ঠিকানা হবে নিশ্চিত জাহান্নাম। বিশ্বের এ নাজুক পরিস্থিতিতে একমাত্র আল্লাহর সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই সর্বশেষ নাবী ও রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে ইসলামের আইন-বিধান সমাজ ও রাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠিত হলেই সকল প্রকার দূর্ভোগ ও অশান্তি দূর হয়ে সকল মানুষের জীবনে মৌলিক অধিকারসহ সকল অধিকার নিশ্চিত হবে। আর যারা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর মাধ্যমে রাসূল (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে সমাজ ও রাস্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আন্তরিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেন তারা আল্লাহর ক্ষমা লাভ করে জান্নাতবাসী হবেন।জনাব সাইদুজ্জামানের সভাপতিত্বে- খিলগাঁও সিপাহীবাগ ক্লাবের মােড় সংলগ্ন গােল চত্তরে ইসলামী সমাজের কেন্দ্রীয় নেতা জনাব আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ওয়াজ ও দােয়ার মাহফিলে ইসলামী সমাজের আমীর বলেন, সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় মানুষের জীবনে ইসলামের আইন- বিধান প্রতিষ্ঠিত না থাকায় সুশাসন, ন্যায় বিচার এবং মানবাধিকার চরমভাবে ভুলুন্ঠিত। দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ক্রম উর্ধগতি, মজুদদারী, খুন-ধর্ষন, গুম, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, দুর্নীতি, রাজনীতির নামে দেশের অর্থ সম্পদ লুট করে বিদেশে পাচার সহ সর্বত্র ক্ষমতার অপব্যবহার হচ্ছে। ফলে, জাতির মানুষ আজ দিশেহারা। ‘অর্থ-সম্পদের মোহ, ক্ষমতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মানুষে মানুষে সংঘাত ও সংঘর্ষ এবং প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট দূর্যােগ মূলতঃ মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে অবাধ্য মানব জাতির জন্য পরীক্ষামূলক গজব’ এ কথার উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, আল্লাহর নির্দেশিত ও তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে ইসলাম কায়েমের আন্তরিক প্রচেষ্টাই মূলতঃ এ সকল আযাব-গজব থেকে রক্ষা পেয়ে দুনিয়ায় কল্যাণ, শান্তি এবং আখিরাতে মুক্তির একমাত্র পথ। ইসলামী সমাজ সকল প্রকার দুর্নীতি, সন্ত্রাস, উগ্রতা, জঙ্গীতৎপরতা ও মাদকসহ সকল মানবতা এবং ইসলাম বিরােধী অপতৎপরতার বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান গ্রহণ করেই আল্লাহর রাসূল মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর মাধ্যমে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি, ইসলামী সমাজ পরিচালিত শান্তিপূর্ণ দাওয়াতী আন্দোলনে দেশবাসী সকলকে শামিল হওয়ার আন্তরিক আহবান জানান। ইসলামী সমাজের কেদ্রীয় নেতা-সৈয়দ মুহাম্মাদ কবীর ও আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ওয়াজ ও দােয়ার মাহফিলে ইসলামী সমাজের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দগণ আলোচনা করেন।

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *