তেল, গ্যাস, বিদ্যুতের চরম ঘাটতি এবং দ্রব্যমূল্যের ক্রম উর্দ্ধগতিসহ বিভিন্ন সমস্যার মূল কারন সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত না থাকা। আমীর, ইসলামী সমাজ

ইসলামী সমাজের আমীর হযরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় ইসলামের আইন- বিধান প্রতিষ্ঠিত না থাকায় সুশাসন ও ন্যায় বিচার এবং মানবাধিকার চরমভাবে ভুলন্ঠিত। তেল, গ্যাস, বিদ্যুতের চরম ঘাটতি এবং দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ক্রম উর্ধগতি, খুন-ধর্ষন, রাজনীতির নামে দেশের অর্থ সম্পদ লুট-পাটসহ সর্বত্র ক্ষমতার অপব্যবহার হচ্ছে, ফলে জাতির মানুষ আজ দিশেহারা। অর্থ সম্পদের মোহ, ক্ষমতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মানুষে মানুষে সংঘাত ও সংঘর্ষ এবং প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট দূর্যোগ মূলতঃ মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে অবাধ্য মানব জাতির জন্য আযাব-গজব। আজ ৯ই আগষ্ট, ২০২২ ঈসায়ী (১০ই মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী); মঙ্গলবার বিকাল ৩ ঘটিকায় কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানাধীন কুশিয়ার খানবাড়ী সংলগ্ন বালুর মাঠে- “দুর্নীতি, সন্ত্রাস, উগ্রতা ও জঙ্গিতৎপরতাসহ সকল মানবতা বিরোধী অপরাধ নির্মূলে সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠায় “মানুষের নয়! সার্বভৌমত্ব একমাত্র আল্লাহর” এ মহাসত্যের ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য গঠন এবং দুনিয়া থেকে চির বিদায় গ্রহণকারী সকল ঈমানদার মুসলিম ভাই ও বোনদের রুহের মাগফিরাত এবং সকল মানুষের সার্বিক কল্যাণে দোয়ার লক্ষ্যে পবিত্র আশুরা উপলক্ষ্যে” ‘ইসলামী সমাজ’ এর উদ্যোগে- ২দিনব্যাপী ২৫তম বার্ষিক ইসলামী মাহফিলের ১ম দিনে পুরুষ সম্মেলনে সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, আল্লাহর নির্দেশিত ও তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে ইসলাম কায়েমের আন্তরিক প্রচেষ্টাই মূলতঃ আল্লাহ রাব্বুল আলামীনরে বভিন্নি রকম আজাব গজব থেকে রক্ষা পেয়ে দুনিয়ায় কল্যাণ, শান্তি এবং আখিরাতে মুক্তির একমাত্র পথ, গণতন্তরে অধীনে নর্বিাচন কংিবা সশস্ত্র সংগ্রাম সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতষ্টিায় ঈমানদারগণরে রাষ্ট্রীয় শাসন ক্ষমতা লাভরে পদ্ধতি নয়, বরং এসব ইসলাম বরিোধী অপতৎপরতা এবং জাহান্নামরে পথ। তনিি বলনে, ঈমান ও ইসলামরে দাওয়াতরে মাধ্যমে আমীররে নতেৃত্বরে আনুগত্যে সবর ও ক্ষমার নীতকিে দৃঢ় থকেে ঈমানদার নকে আমলকারী চরত্রিবান লোক তরৈী হলইে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন ইসলাম প্রতষ্ঠিার লক্ষ্যে তাদরেকে রাষ্ট্রীয় নতেৃত্ব দান করবনে। এ পদ্ধতীতে রাষ্ট্রীয় নতেৃত্ব লাভ হলইে সকল র্ধমরে লোকদরে জন্য যার যার র্ধম পালনরে সুযোগ রখেে আল্লাহর রাসূল হযরত মোহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামরে অনুসরন ও অনুকরনে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতষ্ঠিতি হলইে মানুষরে জীবনে সুশাসন ও ন্যায়বচিার প্রতষ্ঠিতি হব,ে এবং র্দূনীত,ি সন্ত্রাস, জঙ্গবিাদ ও শোষন মুক্ত সমাজ ও রাষ্ট্র গঠতি হব।ে এটাই সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতষ্ঠিায় আল্লাহর নর্দিশেতি ও রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম প্রর্দশতি একমাত্র পদ্ধত।ি

ইসলামী সমাজ সকল প্রকার দুর্নীতি, সন্ত্রাস, উগ্রতা, জঙ্গীবাদ ও মাদকসহ সকল মানবতা এবং ইসলাম বিরোধী অপতৎপরতার বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান গ্রহণ করেই রাসূল মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে শান্তিপূর্র্ণ কর্মসূচীর মাধ্যমে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি, ইসলামী সমাজ পরিচালিত শান্তিপূর্ন দাওয়াতী আন্দোলনে দেশবাসী সকলকে শামিল হওয়ার আন্তরিক আহব্বান জানান।

ইসলামী সমাজের কেন্দ্রীয় নেতা- জনাব আসাদুজ্জামান বুলবুল, সেলিম মোল্লা ও আজমুল হকের যৌথ সঞ্চালনায় বার্ষিক ইসলামী মাহফিলে আরো বক্তব্য রাখেন- সোলায়মান কবীর, মুহাম্মাদ ইয়াছিন, আবু জাফর মোঃ ইকবাল, মুহাম্মাদ ইউসুফ আলী মোল্লা, নুরুদ্দীন আহমেদ, আমীর হোসাইন, হাফিজুর রহমান, মুহাম্মাদ আলী জিন্নাহ্, সাইফুল ইসলাম, আবু বকর সিদ্দিক, সোহেল আহমেদ, মিনহাজ উদ্দীন, আবু জাফর মোঃ সালেহ, মোস্তফা জামিল সাদ, সৈয়দ মুহাম্মাদ কবীর, মুফতি মিজানুর রহমান, মোঃ হুমায়ূন কবীর, প্রফেসর গুলজার আহমাদ, আবু শামাহসহ আরো অনেকেই । দশে ও জাতরি মানুষরে র্সাবকি কল্যানে দোয়া ও মুনাজাতরে মাধ্যমে র্বাষকি মাহফলি সমাপ্ত হয়।

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published.