জাতীয় প্রেসক্লাবে ইসলামী সমাজের কর্মসূচী ঘোষণা- ২০২০

মুহাম্মাদ ইয়াছিন

ইসলামী সমাজের আমীর হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, সমাজ ও রাষ্ট্র সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ প্রদত্ত কল্যাণকর ও পরিপূর্ণ জীবন ব্যবস্থা ইসলামের ভিত্তিতে গঠিত ও পরিচালিত হলেই মানুষের জীবনে সুশাসন ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে এবং মানুষের মৌলিক অধিকারসহ সকল অধিকার নিশ্চিত হবে। কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রে ইসলামের পরিবর্তে মানব রচিত ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত থাকায় দুর্নীতি, সন্ত্রাস, উগ্রতা, শোষন, জুলম, গুম, খুন, ধর্ষণ ইত্যাদি মানবতা বিরোধী অপরাধ মানুষের সমাজ জীবনে বিপর্যয় সৃষ্টি করেছে, যার কারণে তাদের জীবনে দুর্ভোগ ও অশান্তি ক্রমেই বেড়ে চলছে এবং সুদ ভিত্তিক অর্থনীতির কারণে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের ক্রম উর্ধগতিতে বিশ্বের মানুষ আজ দিশেহারা। সকল মানুষের সার্বিক কল্যাণে বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রের ক্ষমতাসীনদেরকে সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে মানুষের সার্বভৌমত্বের পরিবর্তে একমাত্র সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর সার্বভৌমত্ব মেনে নেয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ভারত সরকারের CAA (নাগরিকত্ব সংশোধন আইন) এবং NRC (নাগরিক পঞ্জী) মূলতঃ মানুষে মানুষে বিভেদ ও বৈষম্য এবং একদল মানুষের নাগরিকত্ব হরণ করে তাদের জীবনে বিপর্যয় সৃষ্টি করার অপতৎপরতা যা মূলতঃ মানবতা বিরোধী অপরাধের শামীল। তাই তিনি মুদী সরকারকে এ হটকারী কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার কারণে লোকদের আখিরাতের জীবনও ধ্বংস হচ্ছে। বিশ্বের এহেনো নাজুক পরিস্থিতিতে দুনিয়ায় কল্যাণ, শান্তি এবং আখিরাতে মুক্তির লক্ষ্যে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য “মানুষের নয়! সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্ব একমাত্র আল্লাহর”- এ মহাসত্যের ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য গঠন করতে হবে। 
ইসলামী সমাজের উদ্যোগে আজ ৩০/১২/২০১৯ ঈসায়ী রোজ সোমবার সকাল ১০-৩০ মিনিটে জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে “একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির লক্ষ্যে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার দাওয়াতী কর্মসূচী বাস্তবায়নে” অনুষ্ঠিত গুরুত্বপূর্ন আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে ইসলামী সমাজের আমীর সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, সঠিক জ্ঞানার্জনের অভাবে ইসলাম ও ইসলাম প্রতিষ্ঠার পদ্ধতি নিয়ে চলছে নানা রকম বিভ্রান্তি। ইসলাম প্রতিষ্ঠার নামে উগ্রতা ও জঙ্গিতৎপরতা কিংবা গণতন্ত্রের অধীনে নির্বাচন চরম বিভ্রান্তি উল্লেখ করে তিনি বলেন, আল্লাহরই সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই আইন-বিধানের প্রতিনিধিত্বকারী আমীরের নেতৃত্বের আনুগত্যে মানব রচিত ব্যবস্থার ভিত্তিতে গঠিত ও পরিচালিত সমাজের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর মাধ্যমে ছবর ও ক্ষমার নীতিতে দৃঢ় থেকে ঈমানদারগণের সমাজ গঠন আন্দোলনই সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠায় আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত একমাত্র পদ্ধতি। ইসলামী সমাজ রাসূল (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতেই সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আন্তরিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

ইসলামী সমাজের কেন্দ্রীয় নেতা সোলায়মান কবীরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত গুরুত্বপর্ণ আলোচনা সভায় ইসলামী সমাজের আমীর বলেন, মানুষের সার্বিক কল্যাণে একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির লক্ষ্যে তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠায় দল-মত নির্বিশেষে সকল মানুষের নিকট ইসলামের সঠিক জ্ঞান ও দাওয়াত পৌছিয়ে দেয়ার জন্য রাজধানী ঢাকাকে ১২টি অঞ্চলে বিভক্ত করে ১২ জন দায়িত্বশীল এবং ১৩ জন সহকারী দায়িত্বশীল মনোনীত করা হয়েছে এবং ৫০টি থানায় ২৬ জন থানা দায়িত্বশীল নিয়োগ করা হয়েছে। ২০২০ ঈসায়ী সালের ১ জানুয়ারী থেকে ৭ জানুয়ারী পর্যন্ত সপ্তাহব্যাপী ঢাকা মহানগরীর প্রতিটি থানায় গণসংযোগ এবং ৭ জানুয়ারী জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তার দক্ষিণ পার্শ্বে সকাল ১১টায় মহাসত্যের ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য গঠনের লক্ষ্যে “মানব বন্ধন” করার কর্মসূচী ঘোষণা করেন তিনি এবং দেশবাসী সকলকে ঘোষিত কর্মসূচীসহ ইসলামী সমাজের শান্তিপূর্ণ সকল কর্মসূচীতে জান ও মালে শামিল হওয়ার, সমর্থন ও সহযোগীতা করার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ইসলামী সমাজের কেন্দ্রীয় নেতা সর্ব জনাব- মুহাম্মাদ ইয়াছিন, মুহাম্মাদ ইউসুফ আলী, মুহাম্মাদ আমীর হোসাইন ও আসাদুজ্জামান বুলবুল।

 

 

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *