দুর্নীতির করাল গ্রাসে দিশেহারা বিশ্ব মানব সমাজ- আমীর, ইসলামী সমাজ।

ইসলামী সমাজের আমীর হযরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রে ইসলামের পরিবর্তে মানব রচিত ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত থাকায় দুর্নীতির করাল গ্রাসে বিশ্ব মানব সমাজ। দুর্নীতি হচ্ছে- আর্দশ থেকে বিচ্যুত হয়ে ভুল নীতি গ্রহণ করা। নীতি ও আদর্শের তোয়াক্কা না করে অবৈধভাবে অন্যের অধিকার হরণ করা, রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে নিজের ও দলের স্বার্থ চরিতার্থ করা, রাষ্ট্রীয় শাসন ক্ষমতার অপব্যবহার করে ক্ষমতাসীনদের স্বার্থ হাসিল করা এবং ঘুষ গ্রহণের মাধ্যমে অন্যের অধিকার নষ্ট করা- এসবই মূলতঃ দুর্নীতি। আইনকে ক্ষমতার কাছে বন্দী করা এবং ক্ষমতায় থাকার জন্য সুবিধামত আইন রচনা করাও দুর্নীতি। দুর্নীতির কারণে আজ মানুষের জীবনে অশান্তি বিরাজ করছে, দ্রব্য মূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতিতে জাতি আজ দিশেহারা, সুশাসন ও ন্যায় বিচার এবং মৌলিক অধিকার থেকে মানুষ আজ বঞ্চিত। মানব রচিত সকল ব্যবস্থাকে চরম দুর্নীতি উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমানে বিশ্বের মানুষ মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার কারণে তারা দুর্নীতির করাল গ্রাসে দিশেহারা এবং তাদের আখিরাতের জীবনও ধ্বংস হচ্ছে। বিশ্বের এহেন নাজুক পরিস্থিতিতে দুনিয়ায় কল্যাণ, শান্তি এবং আখিরাতে মুক্তির লক্ষ্যে সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার জন্য “মানুষের নয়! সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্ব একমাত্র আল্লাহর”- এ মহাসত্যের ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য গঠন করতে হবে।
“ইসলামী সমাজ” এর উদ্যোগে আজ ২৭ মার্চ ২০২২; (রবিবার) সকাল ১১:০০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে “দুর্নীতির করাল গ্রাসে বিশ্ব মানব সমাজ; উত্তরণ কোন পথে?” এ বিষয়ে অনুষ্ঠিত “বিশেষ মানববন্ধনে” প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংগঠনের আমীর বলেন, দুর্নীতির করাল গ্রাস থেকে বিশ্ব মানব সমাজকে মুক্ত করার লক্ষ্যে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার ঈমানী ও নৈতিক দায়িত্ব পালনে “ইসলামী সমাজ” এর নেতা ও কর্মীগণ মাঠে নেমেছে। উগ্রতা ও জঙ্গিতৎপরতা কিংবা গণতন্ত্রের অধীনে নির্বাচন ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার পদ্ধতি নয়! একথার উল্লেখ করে তিনি বলেন, শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি গ্রহণ করে ঈমান ও ইসলামের দাওয়াতের মাধ্যমে দাওয়াতি কাজে বাঁধা প্রদানকারীদের বিরোধিতার মোকাবেলার দায়িত্ব আল্লাহর উপর ছেড়ে দিয়ে ছবর ও ক্ষমার নীতিতে দৃঢ় থেকে ঈমানদারগণের সমাজ গঠন আন্দোলনই সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠায় রাসূল মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত একমাত্র পদ্ধতি। “ইসলামী সমাজ” রাসূল মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতেই সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার আন্তরিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে “ইসলামী সমাজ” পরিচালিত ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে তিনি সকলকে শামিল হওয়ার আহ্বান জানান।
কেন্দ্রীয় নেতা মুহাম্মাদ ইয়াছিনের পরিচালনায় মানব বন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন- জনাব মুহাম্মাদ ইউসুফ আলী মোল্লা, আমির হোসাইন, সোলায়মান কবীর প্রমুখ। মানব বন্ধন শেষে দেশ ও জাতির সার্বিক কল্যাণে দোয়া ও মুনাজাত করেন ইসলামী সমাজের আমীর সৈয়দ হুমায়ূন কবীর।

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published.