দেশে চলমান সংঘাতময় অবস্থার অবসানে ইসলামী সমাজের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ঘোষণা

ইসলামী সমাজের আমীর হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’এর পরিবর্তে কোন না কোন মানব রচিত ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত থাকায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের মানুষ “মানুষের সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্বের” অধীনে বন্দি হয়ে, মানুষেরই মনগড়া আইনের আনুগত্য স্বীকার করে মানুষের দাসত্ব করছে এবং আল্লাহর সার্বভৌমত্বের সীমালংঘনকারী দুর্নীতিবাজ নেতাদের আনুগত্যে বিভিন্ন ইস্যুতে বিভক্ত হয়ে সংঘাত ও সংঘর্ষের পথে চলছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে “সরকার ও সরকার বিরোধীরা” ক্ষমতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভয়াবহ সংঘাত ও সংঘর্ষের মুখোমুখী অবস্থান করছে। গণতন্ত্র তথা মানব রচিত ব্যবস্থার অধীনে বন্দি হয়ে ইসলামের বিপরীত মানুষের মনগড়া আইন-বিধান মেনে চলার কারণেই আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের আযাব-গজবের অংশ হিসেবেই মানুষের মাঝে এ সংঘাতময় অবস্থা বিরাজ করছে। আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে সামজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত হলেই সংঘাতময় অবস্থার অবসান হবে এবং মানুষের জীবনে সুশাসন ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে, ফলে সকল মানুষের ধর্মীয় অধিকারসহ সকল অধিকার আদায় ও সংরক্ষণ হবে।
তিনি বলেন, যারা আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকবে তারা অখিরাতে আল্লাহর রহমতে জাহান্নাম থেকে রক্ষা পেয়ে জান্নাত লাভ করবে। ইসলামী সমাজের কেন্দ্রীয় নেতা সোলায়মান কবীরের পরিচালনায় আজ ১২ জানুয়ারী ২০২৩ইং, বৃহস্পতিবার দুপুর ০২ ঘটিকায় বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন হলে “বিশ্বব্যাপী চলামন সংঘাতময় অবস্থার কারণ এবং এ থেকে উত্তরণের লক্ষ্যেই ইসলামী সমাজ গঠন আন্দোলন” শীর্ষক অনুষ্ঠিত গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা সভায় ¬সংগঠনের আমীর সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, “ইসলামী সমাজ দল, মত নির্বিশেষে সকল মানুষের জন্য নিরাপদ আশ্রয়স্থল”। তিনি বলেন, ইসলামী সমাজ সকল মানুষের সার্বিক কল্যাণে একমাত্র আল্লাহর সন্তষ্টির লক্ষ্যে তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির মাধ্যমে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আন্তরীক প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি দেশে চলমান সংঘাতময় অবস্থার অবসানে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠায় “জানুয়ারী ও ফেব্রæয়ারী ২০২৩ইং” এ দুমাসে দেশব্যাপী ৩ দফা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। ঘোষিত কর্মসূচীসমূহ- (১) দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ৮টি কল্যাণ ও শান্তি সমাবেশ।
২১ জানুয়ারী ২০২৩ ইং শনবিার: কুমল্লিা মহানগর। ২৮ জানুয়ারী ২০২৩ ইং শনবিার: গাজীপুর মহানগর।
০৪ ফব্রেুয়ারী ২০২৩ ইং শনবিার: চট্রগ্রাম মহানগর। ১১ ফব্রেুয়ারী ২০২৩ ইং শনবিার: কুষ্টয়িা জলো শহর।
১৫ ফব্রেুয়ারী ২০২৩ ইং বুধবার: বরশিাল মহানগর। ১৮ ফব্রেুয়ারী ২০২৩ ইং শনবিার: নারায়নগঞ্জ মহানগর।
২২ ফব্রেুয়ারী ২০২৩ ইং বুধবার: রংপুর মহানগর। ২৫ ফব্রেুয়ারী ২০২৩ ইং শনবিার: ময়মনসংিহ মহানগর।
(২) দেশব্যাপী গনসংযোগ প্রচারপত্র বিলি ও সংক্ষিপ্ত পথসভা। (৩) দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সমূহের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিগণের সাথে মত বিনীময় করা হবে ইনশাআল্লাহ।
কর্মসূচি বাস্তবায়নে তিনি সরকার, প্রশাসন, সাংবাদিক বন্ধুগণ, দেশবাশী ভাই ও বোন সকলকে সহযোগীতা করার জন্য আন্তরিক আহ্বান জানান।

 

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *