দেশে সরকার ও সরকার বিরোধী জোট সমূহের নেতা-নেত্রীদের রাজনীতির নামে দুর্নীতির কারণে বিভিন্ন মহলে আতঙ্ক বিরাজ করছে। আমীর, ইসলামী সমাজ।

ইসলামী সমাজের আমীর, হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, করোনা ও ওমিক্রনের সংক্রমন বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে এবং দেশে সরকার ও সরকার বিরোধী জোট সমূহের নেতা-নেত্রীদের রাজনীতির নামে দুর্নীতির কারণে বিভিন্ন মহলে আতঙ্ক বিরাজ করছে। সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন এবং পরিচালনায় সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর পরিবর্তে মানুষের সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্ব মেনে মানব রচিত ব্যবস্থার আইন-বিধান পালনের মাধ্যমে মানুষের দাসত্ব ও আনুগত্য করা আল্লাহর সাথে সুস্পষ্ট “কুফর ও শিরক” একথার উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, বর্তমান বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রের মানুষ সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন এবং পরিচালনায় কোন না কোন মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার মাধ্যমে সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর সাথে কুফর ও শিরকে লিপ্ত আছে বিধায়; করোনা ও ওমিক্রনের আক্রমণ জনিত মহামারীসহ আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের বিভিন্ন রকমের আযাব-গজবের শিকার হয়ে আতঙ্কিত অবস্থায় বিশ্বের মানুষ দুর্ভোগ ও অশান্তিতে কাল কাটাচ্ছে এবং তাদের আখিরাতের জীবনও ধ্বংস হচ্ছে।
“ইসলামী সমাজ” ঢাকা বিভাগীয় অঞ্চল-২ এর দায়িত্বশীল জনাব মুহাম্মাদ ইয়াছিনের সঞ্চালনায় আজ ২৩ জানুয়ারি ২০২২; রবিবার সকাল ১১ টায় রাজধানী ঢাকা’র বাংলাদেশ ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন হলে “দেশে চলমান পরিস্থিতিতে বিভিন্ন আতঙ্ক বিরাজ করছে, এ থেকে উত্তরণের উপায় এবং কর্মসূচি ঘোষণার লক্ষ্যে “গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশে বিভিন্ন মহলে বিরাজমান আতঙ্ক, করোনা ও ওমিক্রনের আক্রমণ জনিত মহামারীসহ সকল প্রকার আযাব-গজব এবং আখিরাতের জীবনে মহাক্ষতি (ধ্বংস) থেকে বাঁচতে হলে দল, মত, জাতি, ধর্ম, বর্ণ ও গোত্র নির্বিশেষে সকলকে-

০১) সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন এবং পরিচালনায় সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্ব মানুষের ত্যাগ করে জীবনের সকল ক্ষেত্রে সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্ব একমাত্র আল্লাহর গ্রহণ করে ঘোষণা করতে হবে “রাব্বুনাল্লাহু বা আল্লাহু আকবার”।

০২) সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন এবং পরিচালনায় দাসত্ব ও আনুগত্য মানুষের এবং গাইরুল্লাহর উপাসনা ত্যাগ করে জীবনের সকল ক্ষেত্রে দাসত্ব, আনুগত্য ও উপাসনা একমাত্র আল্লাহর গ্রহণ করে সাক্ষ্য ও অঙ্গিকার করতে হবে- আশহাদু আল্লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু।

০৩) সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন এবং পরিচালনায় আনুগত্য অনুসরণ ও অনুকরণ মানুষের মনগড়া সংবিধানের ভিত্তিতে নেতৃত্ব দানকারী নেতা বা সরকারের ত্যাগ করে জীবনের সকল ক্ষেত্রে শর্তহীন আনুগত্য অনুরসণ ও অনুকরণ একমাত্র আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর গ্রহণ করে সাক্ষ্য ও অঙ্গিকার করতে হবে- আশহাদু আন্না মুহাম্মাদার রাসূলুল্লাহ।

০৪) আল্লাহর সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই আইন-বিধানের প্রতিনিধিত্বকারী আমীরের নেতৃত্বের আনুগত্যে আল্লাহর নির্দেশিত এবং তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে নিজেদের সময় এবং অর্থ কুরবানী করে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার ঈমানী, নৈতিক ও মানবিক দায়িত্ব পালন করতে হবে।

০৫) সালাতের মাধ্যমে আল্লাহর সাথে সম্পর্ক গভীর ও তাঁরই নিকট সাহায্য প্রার্থণা করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে হবে। এসব বিষয়গুলো গ্রহণ ও মেনে চলার মধ্যেই কল্যাণ ও মুক্তি, এ লক্ষ্যেই “ইসলামী সমাজ” সকল প্রকার দুর্নীতি, সন্ত্রাস, উগ্রতা ও জঙ্গীতৎপরতার বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান গ্রহণ করে আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে ‘ইসলাম’ দুনিয়ার জীবনে কল্যাণ, শান্তি এবং আখিরাতের জীবনে চির সুখের স্থান জান্নাত লাভের নিমিত্তে দল-মত নির্বিশেষে সকলকে তিনি প্রতিষ্ঠার ঈমানী, নৈতিক ও মানবিক দায়িত্ব পালন করছে।
‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠায় “ইসলামী সমাজে” শামিল হয়ে ঈমানী ও নৈতিক দায়িত্ব পালনের আহবান জানান।
অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে “ইসলামী সমাজ” গৃহিত কতিপয় শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

ঘোষিত কর্মসূচি সমূহ:

০১) ২৪ জানুয়ারি, ২০২২ এবং ২৬ জানুয়ারি, ২০২২ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের প্রতিটি থানা এলাকায় “ইসলামী সমাজ” গঠিত একটি করে দাওয়াতি টিম গণসংযোগ, লিফলেট ও বুকলেট বিতরণ করবে, ইনশাআল্লাহ ।

০২) ২৫ জানুয়ারি, ২০২২ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর উত্তরের প্রতিটি থানা এলাকায় ইসলামী সমাজ গঠিত ২টি করে দাওয়াতি টিম গণসংযোগ, লিফলেট ও বুকলেট বিতরণ করবে এবং বিকাল ৩ ঘটিকায় পল্লবী থানাধীন মিরপুর-১১ বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন “ময়ূরী কমিউনিটি সেন্টারে” বিশেষ দাওয়াতি সমাবেশ।

উপর্যুক্ত বিশেষ দাওয়াতি সমাবেশে প্রধান মেহমান হিসেবে উপস্থিত থাকবেন- আল্লাহর সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই আইন-বিধানের প্রতিনিধিত্বকারী নেতা ও ইসলামী সমাজের সম্মানিত আমীর, হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর।

০৩) ২৭ জানুয়ারি, ২০২২; বৃহস্পতিবার, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের প্রতিটি থানা এলাকায় ইসলামী সমাজ

গঠিত ২টি করে দাওয়াতি টিম গণসংযোগ, লিফলেট ও বুকলেট বিতরণ করবে এবং বিকাল ৩ ঘটিকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের অডিটোরিয়ামে বিশেষ আলোচনা সভা।

উপর্যুক্ত বিশেষ আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন- আল্লাহর সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই আইন-বিধানের প্রতিনিধিত্বকারী নেতা ও ইসলামী সমাজের সম্মানিত আমীর, হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর।

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published.