সমাজ ও রাষ্ট্র সহ নিজ জীবনের সকল দিক ও বিভাগে একমাত্র আল্লাহ্’র সার্বভৌমত্ব মানার মাধ্যমেই মানুষ শান্তি ও মুক্তি লাভ করতে পারবে।

১৮ এপ্রিল ২০১৪ ঈসায়ী বাসাবো ওহাব কলোনী মাদ্রসায়ে মোহাম্মদীয়া আরাবিয়া’র হলরুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান আলোচক “ইসলামী সমাজ” এর আমীর হযরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, মানুষের জীবনের সকল দিক ও বিভাগে ‘মানুষের সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্ব’ নামক মহামিথ্যা ত্যাগ করে “মানুষের নয়! সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্ব একমাত্র আল্লাহ্’র” এ মহাসত্য গ্রহণ করলেই মানুষ তার কাঙ্খিত কল্যাণ, শান্তি ও মুক্তি লাভ করতে পারবে।

Untitled-2তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল রাষ্ট্রের মানুষই বর্তমানে সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় জনগনকে সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্বের মালিক মেনে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্বের সাথে র্শিক ও কুফর করছে। পরিণতিতে মানুষের সকল আমল ধ্বংশ হয়ে তাদের দুনিয়ার জীবনে সাম্য, ঐক্য ও শান্তি বিনষ্ট হয়ে দেখা দিয়েছে সংঘাত ও সংঘর্ষ সহ আল্লাহ্’র বহুবিধ আযাব ও গযব। মূলতঃ র্শিক ও ক্ফুর সম্পর্কে মানুষের অজ্ঞতার কারণেই মানুষ তাদের বহু কষ্টে করা আমল হতে কাঙ্খিত কল্যাণ ও প্রতিদান লাভ করা হতে বঞ্চিত হচ্ছে। আল্লাহ্’র পরিবর্তে মানুষের সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্ব মেনে নিলে যে মহান রব্ব আল্লাহ্’র সাথে র্শিক ও কুফর হয় এ সম্পর্কে সঠিক ও স্বচ্ছ ধারণা না থাকার কারণেই মানব জাতি আজ তার চির আকাঙ্খিত সুখের স্থান জান্নাতের পরিবর্তে জাহান্নামের কঠিন শাস্তির স্বাদ আস্বাদনের দ্বারপ্রান্তে উপণীত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দুনিয়ার সকল মানুষ তাদের দুনিয়ায় অবস্থানকালীন জীবনে এবং মৃত্যু পরবর্তী জীবনে যাতে কল্যাণ ও মুক্তি পায় সেজন্য সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় “মানুষের নয়! সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্ব একমাত্র আল্লাহ্’র” এ মহাসত্য তথা ইসলাম প্রতিষ্ঠার কোন বিকল্প নেই। আর ইসলামী সমাজ বিশ্বের সকল মানুষকে এ মহাসত্য গ্রহণ এবং সঠিক পদ্ধতিতে এ মহাসত্য সমাজ ও রাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠার দাওয়াতই দিয়ে যাচ্ছে।

জনাব আকিক হাবিবুজ্জামান এর পরিচালনায় এবং মুফতী কাজী আরিফুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে আরও বক্তব্য রাখেন সর্বজনাব আবু জাফর মুহাম্মদ ইকবাল, মুহাম্মাদ ইয়াছিন, মুহাম্মাদ ইউছুফ আলী, মুহাম্মাদ সোলাইমান কবীর, মুহাম্মাদ সোহেল, আসাদুজ্জামান প্রমুখ।

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *