সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর সাথে কুফর ও র্শিকের কারণে  মানব জীবনে চরম অস্থিরতা ও অশান্তি বিরাজ করছে।

‘ইসলামী সমাজ’ এর আমীর হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, বর্তমানে পৃথিবীর প্রতিটি দেশে সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় কোন না কোন মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার মাধ্যমে বিশ্বের মানুষ সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্ব এবং তাঁরই আইনের আনুগত্যের পরিবর্তে মানুষের সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও কর্তৃত্ব মেনে মানুষের মনগড়া আইনের আনুগত্য স্বীকারের মাধ্যমে আল্লাহর সাথে কুফ্র ও র্শিক তথা আল্লাহ্র চরম অবাধ্যতা ও তাঁর সাথে অংশী স্থাপন করছে যার কারণে আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীনের আযাব-গজব হিসেবে ক্ষমতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মানুষে মানুষে চলছে সংঘাত ও সংঘর্ষ এবং তাদের জীবনে বিরাজ করছে চরম অস্থিরতা ও অশান্তি। তিনি বলেন, সকল ধর্মের লোকদের জন্য যার যার ধর্মীও অনুশাসন মেনে চলার সুযোগ রেখে সমাজ ও রাষ্ট্র পরিচালনায় আল্লাহর নির্দেশিত ও তাঁরই রাসুল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) প্রদর্শিত শান্তিপূর্ন পদ্ধতিতে ইসলামের আইন-বিধান কার্যকরী হলেই মানব জীবনে অস্থিরতা দূর হয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে।
 
ইসলামী সমাজের উদ্যোগে জনাব আকিক হাবিবুজ্জামানের সভাপতিত্বে আজ ০১/০৩/২০১৯ ইং রোজ শুক্রবার বিকাল ০৪টায় বাংলাদেশ ফটো জার্নালিষ্ট এসোশিয়েশন মিলনায়তনে “সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠায় আল্লাহর নির্দেশিত ও রাসূল সাঃ প্রদর্শিত পদ্ধতি” কোনটি? উক্ত বিষয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আল্লাহরই সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই আইন-বিধানের প্রতিনিধিত্বকারী নেতা ইসলামী সমাজের আমীর বলেন, মানুষের সার্বভৌমত্ব ও মানব রচিত ব্যবস্থার বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান গ্রহণ করে একমাত্র আল্লাহর সার্বভৌমত্ব, আইন-বিধান ও নিরংকুশ কর্তৃত্ব এবং তাঁরই আইন-বিধানের আনুগত্য ও তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর শর্তহীন অনুসরন ও অনুকরনের অধীনে থেকে আল্লাহর মনোনিত আমীর অর্থাৎ আল্লাহর সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই আইন-বিধানের প্রতিনিধিত্বকারী নেতার নেতৃত্বে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর মাধ্যমে ঈমানদার গণের সমাজ গঠন আন্দোলনই সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আল্লাহর নির্দেশিত ও তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) প্রদর্শিত একমাত্র পদ্ধতি এ পদ্ধতিতে একদল ঈমানদার সৎকর্মশীল লোক গঠন হলেই সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ তাদেরকে ইসলাম প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে খিলাফাত অর্থাৎ রাষ্ট্রীয় শাসন ক্ষমতা দান করবেন। ইসলাম প্রতিষ্ঠার নামে গণতন্ত্রের অধীনে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ ইসলাম বিরোধী অপতৎপরতা একথার উল্লেখ করে তিনি বলেন, গণতন্ত্রের অধীনে নির্বাচন করতে হলে আল্লাহর সার্বভৌমত্ব ও তাঁরই আইন-বিধানের আনুগত্যের পরিবর্তে মানুষের সার্বভৌমত্ব ও মানুষেরই আইন-বিধানের আনুগত্য স্বীকার করেই করতে হয় বিধায় এটা আল্লাহর সাথে কুফ্র ও র্শিক যা মূলত ক্ষমার অযোগ্য মহা পাপ। তিনি আরো বলেন, অপর দিকে পৃথিবীর কোথাও সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত না থাকাকালীন সময়ে ইসলাম প্রতিষ্ঠার নামে উগ্রতা ও সশস্ত্র লড়াই ইসলাম ও মানবতা বিরোধী অপতৎপরতা যা মূলত সন্ত্রাস ব্যাতিত আর কিছুই নয়। কারণ আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর মদীনায় রাষ্ট্রীয় শাসন ক্ষমতা লাভের আগে মাক্কী জীবনের তের বছরে আল্লাহর নির্দেশ ছিল সশস্ত্র লড়াই না করার এবং সকল প্রকার বিরোধীতার বিষয়ে মোকাবেলার দায়িত্ব আল্লাহর উপর ছেড়ে দেয়ার। 
আলোচনা সভায় ইসলামী সমাজের আমীর বলেন, ইসলামী সমাজের নেতা ও কর্মীগণ সকল প্রকার দুর্নীতি, সন্ত্রাস, উগ্রতা ও জঙ্গীতৎপরতাসহ ইসলাম এবং মানবতা বিরোধী সকল অপতৎপরতার বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান গ্রহণ করে সমাজ ও রাষ্ট্রে আল্লাহর নির্দেশিত ও তাঁরই রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) প্রদর্শিত পদ্ধতিতে নিজেদের সময় ও অর্থ কুরবানী করে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আন্তরিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। দল মত নির্বিশেষে সকলকে তিনি ইসলামী সমাজে শামিল হয়ে ইসলাম প্রতিষ্ঠায় ঈমানী ও নৈতিক দায়িত্ব পালনের আহ্বাণ জানান।
ইসলামী সমাজের কেন্দ্রীয় নেতা জনাব সোলায়মান কবীরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সর্ব জনাব মোহাম্মাদ ইয়াছিন, মুহাম্মাদ ইউসুফ আলী, আজমুল হক, মোঃ হাফিজুর রহমান, মোঃ সেলিম মোল্লা, মোঃ আবু শামাহ, হুমায়ূন কবীর, রুহুল আমীন, সাদিকুজ্জামান প্রমূখ।

বার্তা প্রেরক-

মোঃ আবু রাশেদ সিদ্দিক
সদস্য, ইসলামী সমাজ।
মোবাইল: ০১৭৭০-২৭৫৭১৫

 

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *