সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠায় পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে রাষ্ট্রপতি কে ইসলামী সমাজের আমীর সাহেবের বিশেষ চিঠি ও ভিডিও বার্তা প্রদান।

আজ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং, সোমবার, সকাল ১১:০০ টায় “ইসলামী সমাজ” এর আমীর সাহেবের বিশেষ চিঠি ও ভিডিও বার্তা রাষ্ট্রপতিকে প্রদানের পূর্বে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে “দেশ ও জাতির কল্যাণে সংক্ষিপ্ত দোয়া ও মোনাজাত” অনুষ্ঠিত হয়। মুনাজাতের পূর্বে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ইসলামী সমাজের আমীর হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, সকল বাতিল দ্বীনের (ব্যবস্থার) উপরে সত্য দ্বীন (জীবন ব্যবস্থা) ‘ইসলাম’ কে বিজয়ী করার লক্ষ্যেই আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীন তাঁরই সর্বশেষ নাবী ও রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) কে প্রেরণ করেছিলেন। আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) সত্য জীবন ব্যবস্থা ‘ইসলাম’ কে বিজয়ী করেছিলেন। তিনি বলেন, বর্তমান বিশ্বের কোনো একটি রাষ্ট্রেও ‘ইসলাম’ বিজয়ী নেই। বাংলাদেশ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাষ্ট্র হওয়ার পরেও এদেশে ‘ইসলাম’ এর পরিবর্তে প্রতিষ্ঠিত আছে মানব রচিত ব্যবস্থা ‘গণতন্ত্র’।
সৈয়দ হুমায়ূন কবীর আরো বলেন- “নাবী-রাসূল আর আসবেন না। সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার জন্য আল্লাহর সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে তাঁরই আইন-বিধানের প্রতিনিধিত্বকারী নেতার নেতৃত্ব প্রয়োজন। ইসলামী সমাজ আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর মাধ্যমে সমাজ ও রাষ্ট্রে ‘ইসলাম’ প্রতিষ্ঠার আন্তরিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে”। সংগঠনের আমীর বলেন- “বাংলাদেশের বর্তমান রাষ্ট্রপতি জনাব আব্দুল হামিদ খুবই উদার মনের মানুষ। সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমি উনাকে উদাত্ত আহবান জানাচ্ছি। এ মর্মে বিশেষ দিক নির্দেশনা মূলক চিঠি ও ভিডিও বার্তা ইসলামী সমাজের প্রতিনিধি টিম বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মহোদয়কে আজ’ই প্রদান করবে ইনশাআল্লাহ”।
বক্তব্য শেষে সংক্ষিপ্ত মুনাজাতের পর সংগঠনের কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল- সর্বজনাব মুহাম্মাদ ইয়াছিন, মুহাম্মাদ ইউসুফ আলী মোল্লা, সোলায়মান কবীর এবং মোঃ আবু রাশেদ সিদ্দিক জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি ও ভিডিও বার্তা প্রদানের উদ্দেশ্যে বঙ্গভবন অভিমুখে যাত্রা শুরু করে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মহোদয় বরাবর চিঠি ও ভিডিও বার্তা প্রদান করেন। এসময় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তায় অনুষ্ঠিত বিশেষ মানব বন্ধনে পূর্ব ঘোষিত ৩০ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সকলে উপস্থিত ছিলেন। 

মানবতার কল্যাণে বার্তাটি শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *